ইতিহাসের পাতা: ‘আজ শেখ হাসিনার জন্মদিন’

0
34

ইতিহাস আজীবন কথা বলে। ইতিহাস মানুষকে ভাবায়, তাড়িত করে। প্রতিদিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা কালক্রমে রূপ নেয় ইতিহাসে। সেসব ঘটনাই ইতিহাসে স্থান পায়, যা কিছু ভালো, যা কিছু প্রথম, যা কিছু মানবসভ্যতার আশীর্বাদ-অভিশাপ।

তাই ইতিহাসের দিনপঞ্জি মানুষের কাছে সব সময় গুরুত্ব বহন করে। এ গুরুত্বের কথা মাথায় রেখে বা

সময়ের কলম পাঠকদের জন্য নিয়মিত আয়োজন ‘ইতিহাসের এই দিন’।

২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার। ১৩ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। ২৮ মহররম ১৪৪০ হিজরি। এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনা

১৮৬৫- এলিজাবেথ গ্যারেট অ্যান্ডারসন প্রথম শল্যাচিকিৎসক হিসেবে ব্রিটেনে নিবন্ধিত হন।
১৯০৬- হংকয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে ১০ হাজার লোকের প্রাণহানি।
১৯২৩- বুলগেরিয়ায় ফ্যাসিবিরোধী এক অভ্যুত্থান ঘটে।
১৯২৮- স্যার অ্যালেকজান্ডার ফ্লেমিং প্রথমবারের মতো পেনিসিলিন আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করেন।

জন্ম

১৫৭৩- ইতালিয়ান চিত্রশিল্পী মাইকেলাঞ্জেলো।
১৭৪৬- প্রাচ্য তত্ত্ববিদ ও এশিয়াটিক সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা উইলিয়াম জোনস।
১৯২৯- ভারতের স্বনামধন্য কণ্ঠশিল্পী লতা মঙ্গেশকর। তিনি এক হাজারের বেশি ভারতীয় চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দিয়েছেন।

১৯৪৭- বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের জ্যেষ্ঠ সন্তান তিনি। গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ১৫ আগস্টের কালরাতে শেখ হাসিনা ও তার ছোট বোন শেখ রেহানা জার্মানিতে অবস্থান করার কারণে প্রাণে বেঁচে যান। পরে তিনি ইংল্যান্ডে চলে যান এবং সেখান থেকে ১৯৮০ সালে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন শুরু করেন। ১৯৮১ সালে শেখ হাসিনার অনুপস্থিতিতে তাকে সর্বসম্মতিক্রমে আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। বর্তমানেও তিনি আওয়ামী লীগের সভাপতি।

১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তিনি প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালে দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হন তিনি। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জনের পর ১২ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তৃতীয়বারের মতো শপথ নেন শেখ হাসিনা। এরপর ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর আবারও নিরঙ্কুশ জয় লাভ করে আওয়ামী লীগ। পরে চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি তিনি চতুর্থবারের মতো একইসঙ্গে টানা তৃতীয়বারের মতো দেশের প্রধানমন্ত্রী হন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের অন্যতম সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ব্যক্তি হিসেবে বিবেচিত। বিখ্যাত মার্কিন ম্যাগাজিন ফোর্বসের দৃষ্টিতে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ১০০ নারীর তালিকায় ২০১৮ সালে তার অবস্থান ২৬তম। ২০১৭ সালে ছিল ৩০তম। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফরেন পলিসি সাময়িকীর করা বিশ্বব্যাপী শীর্ষ ১০০ বৈশ্বিক চিন্তাবিদের তালিকায় শেখ হাসিনা জায়গা পেয়েছেন। একইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিশ্বখ্যাত টাইম ম্যাগাজিনের বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী ১০০ জনের তালিকায় স্থান পান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আবার এই টাইম তাকে ‘লৌহমানবী’ বলেও আখ্যায়িত করে।

১৯৭৫- অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার স্টুয়ার্ট ক্লার্ক।
১৯৮২- ভারতীয় ক্রিড়াবিদ অভিনভ বিন্দ্রা।

মৃত্যু

১৮৯৫- ফরাসি রসায়নবিদ ও অণুজীববিজ্ঞানী লুই পাস্তুর।
১৯০২- ফরাসি ঔপন্যাসিক এমিল জোলা।
১৯৩৬- সাহিত্যিক শেখ ফজলল করিম।
১৯৫৩- মার্কিন জ্যোতির্বিদ এডউইন হাবল।
১৯৭০- মিসরের সাবেক প্রেসিডেন্ট জামাল আব্দুন নাসের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here